Press reports on the launch of the “ICT & SDGs” report at the Earth Institute, Columbia University, prepared by a research team comprising Dr Fahmida Khatun, Research Director at Centre for Policy Dialogue (CPD).

View more news reports on the event


Published in The Financial Express

Photo: Dr Fahmida Khatun, Research Director, Centre for Policy Dialogue (CPD) and co-author of the report on 'ICT and SDGs' at the launching ceremony
Dr Fahmida Khatun, Research Director, Centre for Policy Dialogue (CPD) and co-author of the report on ‘ICT and SDGs’ at the launching ceremony with Prof Jeffery Sachs, Director of the Earth Institute, Columbia University, Hans Vestberg, President and CEO of Ericsson and others at Columbia University in New York recently.



Published in Dhaka Tribune

PM urges global leaders to reach consensus on climate deal

Sheikh Shahariar Zaman

Emphasises means of implementation for SDGs

Prime Minister Sheikh Hasina has urged the global community to reach a consensus with ambition, focus and commitment on climate change in December.

She made the call in her statement at the UN Summit for the Adoption of the Post-2015 Development Agenda yesterday.

“For Bangladesh, climate change is putting much of our precious development gains at risk. Bangladesh already finds limits to adapt. For us, it is increasingly a matter of existence,” she said.

The Post-2015 Development Agenda, which will govern the development process for the next 15 years, was adopted at the United Nations on Saturday.

“We must ensure that this [Post-2015 Development] Agenda and the climate deal deliver on the shared objectives of protecting and harnessing the present and the future of humanity for shared prosperity,” Hasina said.

The Post-2015 Development Agenda, popularly known as Sustainable Development Goals or SDGs, has 17 goals and 169 targets, their indicators to be determined by individual countries.

The prime minister emphasised that the international community must deliver on the means of implementation including financing, technology, capacity building and debt for each goal and across the agenda.

“We must ensure that the global trading and financial regime and institutions are fair, and that they take into account the difficulties of the developing countries.”

Bangladesh attained significant progress on the Millennium Development Goals (MDGs) in spite of various challenges and constraints.

“To deliver on the SDGs, robust global cooperation would be crucial. We must realise the agenda recognising the different national circumstances, capacities and levels of development,” the prime minister said at the summit.

She said respecting national policies, priorities and policy space would be equally important.

“In order to sustain our progress and truly transform, we will have to address inequalities in all forms across the agenda.”

Citing MDG achievements, she said over the past 15 years, Bangladesh mobilised resources and people to realise the commitments of the development process.

“As the MDGs near their closure, we are delighted that Bangladesh attained almost all the MDG targets, including those related to poverty eradication and reduction of child mortality and communicable diseases,” she said.

Realisation of the MDGs has helped Bangladesh to advance towards graduation as a middle-income country, she added.


ICT and SDGs Report launched ahead of summit

The “ICT & SDGs” Report, a study on the role of information and communications technology (ICT) in achieving the SDGs, was published in New York on Wednesday, ahead of the UN Summit on the SDGs.

The research, a joint collaboration of Columbia University’s Earth Institute and mobile technology giant Ericsson, highlights the ICT sector’s influence in accelerating the achievement of the SDGs within the deadline – which is 2030.

Led by Earth Institute Director Dr Jeffery Sachs, the research team included Dr Fahmida Khatun, research director at Bangladesh’s Centre for Policy Dialogue (CPD), as a financial researcher. She also co-authored the report.

The study points out four sectors where the ICT has high prospect of success: health, education, financial services and infrastructure (focusing on electricity).

It also puts forth some recommendations in this regard, which include more active involvement of the international ICT sector to provide advice, expertise, fund and tools for rapid progress in countries with weaker ICT infrastructure, and partnership between universities and government and businesses to undertake massive training programmes.



Published in Bonik Barta

আর্থ ইনস্টিটিউটের ‘আইসিটি ও এসডিজি’ শীর্ষক প্রতিবেদন নিউইয়র্কে প্রকাশিত

জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য বা এসডিজি বিষয়ক শীর্ষ সম্মেলন সামনে রেখে ২৩ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে যুক্তরাষ্ট্রের কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্থ ইনস্টিটিউট এবং এরিকসন পরিচালিত যৌথ গবেষণার ভিত্তিতে ‘আইসিটি এবং এসডিজি’ শীর্ষক একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। প্রতিবেদনে ২০৩০ সাল নাগাদ জাতিসংঘ প্রণীত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যসমূহ অর্জন ত্বরান্বিত করার ক্ষেত্রে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বা আইসিটির ভূমিকার ওপর আলোকপাত করা হয়েছে।

আর্থ ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক জেফ্রি সাক্সের নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠানের শীর্ষস্থানীয় কয়েকজন গবেষকের একটি দল এ প্রতিবেদনটি প্রস্তুত করে, যাদের মধ্যে রয়েছেন অধ্যাপক বিজয় মোদি এবং সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) গবেষণা পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুন।

প্রতিবেদনে দারিদ্র্য বিমোচনমুখী চারটি খাতকে চিহ্নিত করে সেগুলোর ক্ষেত্রে উন্নয়ন লক্ষ্য এ পর্যন্ত কতটুকু অর্জিত হয়েছে এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির প্রয়োগ ঘটিয়ে এ খাতগুলোয় ভবিষ্যত্ সম্ভাবনার বিষয়টি তুলে ধরা হয়। এ খাতগুলো হলো— স্বাস্থ্য, শিক্ষা, অর্থনৈতিক সেবা এবং অবকাঠামো (বিশেষত বিদ্যুত্শক্তি)। প্রতিবেদনে বলা হয়, সেবা প্রদানের ব্যয় হ্রাস, সেবার পরিসর বিস্তার, সীমিত সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার এবং অনলাইন কমিউনিটির মাধ্যমে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাকে সবার মাঝে দ্রুত ছড়িয়ে দেয়ার মতো বিষয়গুলোকে সহজ করে তুলতে পারে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির এরূপ ব্যবহারের সম্ভাবনাকে বাস্তবে রূপান্তর করার ক্ষেত্রে বেশকিছু সুপারিশ এ প্রতিবেদনে করা হয়েছে। সুপারিশগুলো মধ্যে রয়েছে— জাতিসংঘের ব্রডব্যান্ড কমিশনের মতো কোনো সংস্থার নেতৃত্বে আন্তর্জাতিক আইসিটি প্রতিষ্ঠানগুলো সাহায্য, পরামর্শ, অভিজ্ঞতা, অর্থ ও সরঞ্জাম সরবরাহ করে এসডিজি দ্রুত বাস্তবায়নে সরাসরি ভূমিকা রাখতে পারে; বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় সরকার ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের সহযোগিতায় ব্যাপকভাবে বিভিন্ন প্রশিক্ষণ কর্মসূচি গ্রহণ করা যেতে পারে, পাশাপাশি আইসিটি ক্ষেত্রে বিভিন্ন নতুন ব্যবসা সৃষ্টির দিকগুলো তুলে ধরার লক্ষ্যে ব্যাপক প্রচারণা চালানো যায় এবং আন্তর্জাতিক দাতাগোষ্ঠীর পক্ষ থেকে এসব কার্যক্রম পরিচালনার জন্য দ্রুত ও বিশেষ তহবিল গঠন করা প্রয়োজন। বিজ্ঞপ্তি





You can be the first one to leave a comment.

Leave a Comment